সোনাগাজীতে জামাত নেতার মেয়েকে ধর্ষন করতে গিয়ে গনপিটুনি খেলেন শেষে কারাগারে শিবির নেতা,গ্রেফতার২

প্রকাশিত: ১২:৩৮ অপরাহ্ণ, আগস্ট ৩০, ২০২১ | আপডেট: ১২:৩৮:অপরাহ্ণ, আগস্ট ৩০, ২০২১

সোনাগাজীতে জামাত নেতার মেয়েকে ধর্ষন করতে গিয়ে গনপিটুনি খেলেন শিবির নেতা, মেয়ের ভাই সহ গ্রেফতার ২,ভিকটিম পরিবারের জিম্মায়

সোনাগাজী(ফেনী) প্রতিনিধি
সোনাগাজীতে জামাত নেতার মেয়েকে ধর্ষন করতে গিয়ে জনতার হাতে ধরা পড়ে গনপিটুনি খেলেন হামিদুর রহমান আযাদ নামে শিবির নেতা।ঘটনাটি রবিবার গভীর রাতে উপজেলার বগাদানা ইউনিয়নের পাইকপাড়া গ্রামের আশ্রাফ আলী কবিরাজ বাড়িতে ঘটে।পরে গনপিটুনির শিকার শিবির নেতাকে স্থানীয় জনতা সোনাগাজী মডেল থানা পুলিশে সোপর্দ করেন।রাতেই নির্যাতিত মেয়ের ভাই দীন মোহাম্মদের ফেসবুক আইডি থেকে শিবির নেতাকে রশি দিয়ে বেঁধে রাখার ছবি সম্বলিত পোষ্ট করে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ চাওয়ার পর বিষয়টি মুহূত্বের মধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়।
এ ঘটনায় বগাদানা ইউনিয়ন জামায়াতের সাধারন সম্পাদক মাওলানা আব্দুল হাই বাদি হয়ে শিবির নেতাকে আসামী করে সোমবার দুপুরে সোনাগাজী মডেল থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেছেন।অভিযুক্ত আযাদ উপজেলার মজলিশপুর ইউনিয়নের চরবদরপুর গ্রামের বেলায়েত হোসেনের ছেলে এবং উপজেলা ছাত্রশিবির উত্তর শাখার সাবেক সভাপতি।স্থানীয়রা জানিয়েছে শিবির নেতা আযাদের বিরুদ্ধে এর আগেও একাধীক নারীকে প্রেমের ফাঁদে পেলে প্রতারনার অভিযোগ রয়েছে।

ধর্ষন চেষ্টা মামলার বাদি বলেন, মেয়েকে প্রাইভেট পড়ানোর সুবাদে অভিযুক্তের সাথে আমার পরিবারের সখ্যতা গড়ে উঠে।এ সুযোগে সে আমার কিশোরী মেয়েকে ফুসলিয়ে প্রেমের ফাাঁদে ফেলার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়।বিষয়টি আমার পরিবার জানতে পেরে তাকে প্রাইভেট পড়ানো থেকে অব্যহতি দেওয়া হলে সে ক্ষিপ্ত হয়।রবিবার গভীর রাতে সে আমার বাড়িতে চুপিসারে প্রবেশ করে মেয়ের শয়নকক্ষে ডুকে তাকে ধর্ষনের চেষ্টা চালিয়ে ব্যর্থ হয়ে শারিরীক নির্যাতন করে।পরিবারে সদস্যরা টের পেয়ে তাকে আটক করলে স্থানীয় জনতা জানতে পেরে তাকে রশি প্যাচিয়ে বৈদ্যুতিক খুটির সাথে বেঁধে রাখে।

এদিকে সামজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নির্যাতনের ছবি ছড়িয়ে হেয় প্রতিপন্ন করার অভিযোগে শিবির নেতার পিতা বেলায়েত হোসেন বাদি হয়ে ধর্ষন চেষ্টা মামলার ভিকটিমের ভাই দীন মোহাম্মদের নামে সোনাগাজী থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের করেছেন।মামলার পুলিশ দীন মোহাম্মদকে গ্রেফতার করেন।

সোনাগাজী মডেল থানার ওসি সাজেদুল ইসলাম পাল্টাপাল্টি মামলার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ধর্ষন চেষ্টার মামলার আসামীকে আদালতে প্রেরন করা হয়েছে।ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ভিকটিমের জবানবন্ধি গ্রহন শেষে ভিকটিমকে পরিবারের জিম্মায় হস্তান্তর করা হবে।